মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ১০:০৬ পূর্বাহ্ন

কাদের মির্জাকে অব্যাহতি ও বহিষ্কারের সুপারিশ ২ ঘণ্টা পর স্থগিত

তরফ নিউজ ডেস্ক: নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আবদুল কাদের মির্জাকে বহিষ্কারের জন্য সুপারিশ ও সংগঠনের সব কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়ার দুই ঘণ্টা পর তা আবার স্থগিত করা হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ এইচ এম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম দ্য ডেইলি স্টারকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘বহিষ্কারাদেশ অনিবার্য কারণবশত স্থগিত করা হয়েছে।’

আজ শনিবার বিকাল ৪টার দিকে জেলা আওয়ামী লীগের প্যাডে নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ এইচ এম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ একরামুল করিম চৌধুরীর সই করা এক চিঠিতে আবদুল কাদের মির্জাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কারের জন্য সুপারিশ ও সংগঠনের সব কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির চিঠি দেওয়া হয়।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, বিগত কয়েক মাস থেকে আবদুল কাদের মির্জা দলীয় নেতা ও কর্মীদের ওপর সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে নেতা কর্মীদের গুরুতরভাবে আহত করায় এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের সর্ম্পকে মিথ্যা ও অশ্লীল ও আপত্তিজনক বক্তব্য দেন এবং বিভিন্ন সভা-সমাবেশে এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক লাইভে সংগঠনবিরোধী বক্তব্য, মন্তব্য করায় ও নেতা কর্মীদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে তাকে সংগঠনের সব কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

সংগঠনবিরোধী উল্লিখিত কারণ ও দলীয় গঠনতন্ত্র পরিপন্থি আচরণের অভিযোগে আবদুল কাদের মির্জাকে দলের প্রাথমিক সদস্যপদ থেকে চূড়ান্ত বহিষ্কারের জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং কার্যনির্বাহী সংসদের কাছে সুপারিশ করা হয়েছে বলে চিঠিতে জানানো হয়েছিল।

এ বিষয়ে আবদুল কাদের মির্জার সঙ্গে কথা বললে তিনি বলেন, ‘জেলা আওয়ামী লীগের কোন কমিটি নেই। তাদের সঙ্গে আমার কোন সম্পৃক্ততা নেই। এই অবৈধ কমিটির কোন অস্তিত্ব নেই। এ কমিটি আমাকে বহিষ্কার করার ক্ষমতা রাখে না।’

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

ওয়েবসাইটের কোন কনটেন্ট অনুমতি ব্যতিত কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com