শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৮:৫০ অপরাহ্ন

তথ্য জালিয়াতি করে চাকরি নিয়েছেন নবীগঞ্জের সার্ভেয়ার অলি উল্লাহ

দিদার এলাহী সাজু, নিজস্ব প্রতিবেদক: তথ্য জালিয়াতি করেছেন নবীগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মোঃ অলি উল্লাহ ? কুমিল্লা জেলার স্থায়ী বাসিন্দা হয়ে চাকরি নিয়েছেন সুনামগঞ্জের কোটায় ! এমন তথ্যই বেড়িয়ে এসেছে দৈনিক হবিগঞ্জ সমাচারের অনুসন্ধানে। শুধু তাই নয়, ভূয়া দলিল ও ভূয়া নামজারী পর্চা তৈরীর মত জালিয়াতি মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী হয়েও রয়েছেন বহাল তবিয়তে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, মোঃ অলি উল্লাহ নিজেকে সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারা বাজার উপজেলার ইসলামপুর গ্রামের মৃত আহসান উল্লাহর পুত্র পরিচয় দিয়ে সরকারী চাকুরী লাভ করেছেন। বর্তমানে তিনি নবীগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিসে সার্ভেয়ার হিসেবে কর্মরত। এমন তথ্যই দিচ্ছে হবিগঞ্জের ডেপুটি কালেক্টরের রেভিনিউ শাখা। তবে একটি জমি সংক্রান্ত মামলার অনুসন্ধানের সময় ‘কেঁচো খুঁড়তে বেড়িয়ে এসেছে সাপ’। ফাঁস হয়েছে তথ্য জালিয়াতির গোমর। অলি উল্লাহ সম্পর্কে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন (ইসি)’র ‘এন.আই.ডি ডাটাবেজ’ দিচ্ছে ভিন্ন তথ্য।

ডাটাবেজ বলছে, মোঃ অলি উল্লাহ কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার পূর্ব শাহ দৌলতপুর গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা। ‘এন.আই.ডি ডাটাবেজ’ অনুযায়ী তার জাতীয় পরিচয় পত্র নং- ৬৮৮৮৩২৭৫৮৯, পিন নং-১৯৭৯১৯১১৮৬৩৬৭৬২৩০, ফরম নং-১৬৭৬২৩০ ও ভোটার নং-১৯১২৭৯৬৭৬২৩০। সার্ভেয়ার মোঃ অলি উল্লাহ’র ব্যক্তিগত পরিচয় প্রসঙ্গে দুটি সরকারী প্রতিষ্ঠানের দু’ রকম তথ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, ‘কোনটি সঠিক- এন.আই.ডি ডাটাবেজ না-কি রেভিনিউ শাখার তথ্য।’ তাহলে কি- চাকুরী নিতে তথ্য জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছেন অলি উল্লাহ ?

এদিকে, ভূয়া দলিল ও ভূয়া নামজারী পর্চা তৈরী করে একজনের জমি অন্যজনের নামে রেজিস্ট্রি করার কাজে সহযোগিতার অভিযোগও রয়েছে সার্ভেয়ার অলি উল্লাহর বিরুদ্ধে। হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্টেট আদালতে ওই অভিযোগটি (মামলা) দায়ের করেন নবীগঞ্জ উপজেলার রাইয়াপুর গ্রামের মৃত শেখ আব্দুল মতলিবের পুত্র শেখ আব্দুল গফুর।

আদালতের আদেশ অনুযায়ী মামলাটি তদন্ত করে সি.আই.ডি। তদন্ত শেষে আদালতে দীর্ঘ প্রতিবেদন দাখিল করেন সিআইডি হবিগঞ্জ জোনের তৎকালীন পরিদর্শক মোঃ আব্দুর রাজ্জাক। প্রতিবেদনে সার্ভেয়ার অলি উল্লাহকে ভূয়া দলিল ও ভূয়া নামজারী পর্চা তৈরীর মুল হোতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়। শুধু তাই নয়, ওই প্রতিবেদনেও অলি উল্লাহকে কুমিল্লা জেলার স্থায়ী বাসিন্দা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু ব্যক্তিগত পরিচয়ে বিভ্রান্তি আর জালিয়াতি মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী হয়ে তিনি এখনও বহাল তবিয়তে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

ওয়েবসাইটের কোন কনটেন্ট অনুমতি ব্যতিত কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com