শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১১:৪৩ অপরাহ্ন

‘মানসম্মত শিক্ষা অর্জনে আমাদের করণীয়’ বিষয়ক গবেষণা পত্র উপস্থাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক : মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনে আমাদের করণীয় বিষয়ক গবেষণা পত্র (খসড়া) উপস্থাপনা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় শ্রীমঙ্গল শহরের রর্বাট ক্লাইভ রোডে অবস্থিত সিআরসি সেন্টারের মিলনায়তনে এ গবেষণা পত্র উপস্থাপন করেন গবেষক ম্যাক বাংলাদেশ এর নির্বাহী পরিচালক এস এ হামিদ।

প্রবীণ শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সাইয়্যিদ মুজীবুর রহমান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসাবে ছিলেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম জাকিরুল হাসান, জেলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির সভাপতি জহর তরফদার।

বৃটিশ কাউন্সিলের প্লাটফরমস্ ফর ডায়লগ (পিফোরডি) প্রকল্পের সার্বিক সহায়তায় শ্রীমঙ্গল উপজেলার ৫নং কালাপুর ইউনিয়নের ১৪টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রায় ৩মাস সময় নিয়ে এ গভেষণা প্রত্রটি তৈরী করেন এস এ হামিদ।

তিনি জানান, গবেষণার সম্পকৃত বিষয় হলো, নিরক্ষরতা দুর করে শিক্ষার হার বৃদ্ধিতে প্রাথমিক শিক্ষা শিশুর শারীরিক, মানসিক, সামাজিক, নৈতিক, মানবিক, নান্দনিক, আধ্যাত্মিক ও আবেগিক বিকাশ সাধন এবং তাদের দেশাত্ববোধ, বিজ্ঞানমনস্কতায় সৃজনশীলতায় ও উন্নত জীবনের দর্শনে উদ্ধুদ্ধ করা।

তিনি আরো জানান, গবেষণা পদ্ধতিতে তিনি, চেকলিষ্ট প্রস্তুত করে ইউনিয়নের ১৪ টি বিদ্যালয়ে সরজমিন পরিদর্শনের সময় পর্যবেক্ষন এবং নতিপত্র চেকিং, বিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত এবং পারিপার্শিক অবস্থা, পরিবেশ, রেকর্ড চেকিং এবং অন্যান্য শিক্ষার্থী সংক্রান্ত, শিক্ষক সংক্রান্ত নতিপত্রের সহজ লভ্যতা সরজমিন দেখে এবং ৩৪ টি প্রশ্ন করে নির্দিষ্ট চেকলিষ্ট ফরমে লিপিবদ্ধ করা হয়।

গবেষণায় উপজেলা শিক্ষা অফিসার, এনজিও প্রতিনিধি, সুশীল সমাজ, শিক্ষার্থী, অভিভাবকদের ফোকাস গ্রুপ, ডিসকাশন করে প্রায় ৩০ জনের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয়। সর্বমোট ৮৭ জনের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়। এর মধ্যে প্রধান শিক্ষক ১৫ জন, সহকারী প্রধান শিক্ষক ১৪ জন, বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ১৪ জন, বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করে এমন শিশুর অভিভাবক ১৪ জন এবং অন্যান্য ৩০জন। অনুষ্ঠানে উপস্থি সুধীনজন এই গবেষণা পত্র তৈরী এবং উপস্থাপানার জন্য এস এ হামিদ কে ধন্যবাদ জানান, তবে কিছু ভূলক্রটি আলোচকদের আলোচনার মাধ্যমে উঠে আসে। এবং পরবর্তিতে শোধরানোর আহবান জানান।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সাপ্তাহিক পরিক্রমার প্রধান সম্পাদক ইসমাইল মাহমুদ, একুশে টিভি জেলা প্রতিনিধি বিকুল চক্রবর্ত্তী, আলোকতি বাংলাদেশ এর জেলা প্রতিনিধি সৈয়দ ছায়েদ আহমদ, উত্তর বরুনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষখ অঞ্জন রায়, উত্তর ভাড়াউড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কল্যান দেব, বিরাইমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেন, দেওয়ান সামসুল আলম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা রহিমা বেগম, বৃষ্টিশ কাউন্সিলের ডিভিশনাল কোÑঅডিনেট আলগীর মিয়া ও ডিষ্ট্রিক ফ্যাসিলেটর আকলিমা চৌধুরী প্রমুখ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

ওয়েবসাইটের কোন কনটেন্ট অনুমতি ব্যতিত কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com