বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:৩৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :

অপহরণের ৬দিন পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, অপহরণকারী কারাগারে

নিজস্ব প্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্রতিবেদক, বাহুবল : হবিগঞ্জের বাহুবলে অপহরণের ৬ দিন পর এক স্কুলছাত্রীকে শ্রীমঙ্গল উপজেলার আমড়াইল চা-বাগান এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় অপহরণকারী বিশ্বজিৎ তংলা (১৯) কে গ্রেফতার করে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) রাতে স্কুল ছাত্রীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পুলিশ হেফাজতে হবিগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং অপহরণকারীকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

অপরহরণকারী যুবক মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ জেলার চম্মারাই চা-বাগান এলাকার অনাদী তংলা এর ছেলে ও বাহুবল উপজেলার বিহারীপুর সিপি কোম্পানীর কর্মচারী। অপহৃত স্কুলছাত্রী মিরপুর গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী।

পুলিশ ও স্কুলছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বিহারীপুর গ্রামের স্কুলছাত্রী ২০ ডিসেম্বর (শুক্রবার) রাত ২ টার দিকে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বসতঘর থেকে বাহির হয়। এসময় পূর্ব থেকে উৎ পেতে থাকা বিশ্বজিৎ তংলা নামে এক যুবক কাপড় দিয়ে মুখ চেপে ধরে জোড়পূর্বক একটি সিএনজি অটোরিকশায় তুলে অপরহরণ করে নিয়ে যায়। পরে পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন জায়গায় খুঁজাখুঁজি করে না পেয়ে বুধবার (২৫ ডিসেম্বর) রাতে স্কুল ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বাহুবল মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানা পুলিশ ওইদিন রাত দেড়টার দিকে মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার আমড়াইল চা-বাগান এলাকায় হীরামনী তংলা নামে অপহরণকারীর বোনের বাড়ি থেকে স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় অপহরণকারী যুবক বিশ্বজিৎ তংলা কে গ্রেফতার করা হয়। স্কুলে যাওয়া আসার সময় অপরহরণকারী বিশ্বজিৎ তংলা সিপি কোম্পানীর সামনে দাড়িয়ে প্রায়ই উত্যক্ত করতো বলে স্কুলছাত্রীর বাবা জানান।

এ ব্যাপারে বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ কামরুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অভিযোগ পেয়েই তাৎক্ষণিক অভিযান পরিচালনা করে স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। অপহরণকারীর সহযোগী সিএনজি অটোরিকশা চালককেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

ওয়েবসাইটের কোন কনটেন্ট অনুমতি ব্যতিত কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com