মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১১:৫০ অপরাহ্ন

মন্ত্রী মাহবুব আলীর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন

নুর উদ্দিন সুমন, হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জ-৪ (মাধবপুর-চুনারুঘাট) আসন থেকে দ্বিতীয়বারের মতো সিলেট বিভাগের সর্বোচ্চ ভোটে এমপি নির্বাচিত হয়ে প্রতিমন্ত্রী দায়িত্ব পেয়ে বঙ্গভবনের দরবার হলে শপথ নিয়েছেন একাদশ জাতীয় সংসদের বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী।

সোমবার (৭ জানুয়ারি) বিকাল সাড়ে তিনটায় শুরু হয় শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান। রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ ৩টা ৫০ মিনিটের দিকে ১৯ জন প্রতিমন্ত্রীকে শপথ বাক্য পাঠ করান ।

এ খবরে উচ্ছ্বসিত তার নির্বাচনী এলাকাসহ জেলাবাসী। জেলার মাধবপুর উপজেলার বুল্লা ইউনিয়নের বানেশ্বর গ্রামের কিংবদন্তি রাজনীতিবিদ,
মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ছিলেন উনার পিতা মাওলানা আছাদ আলী।

১৯৬১ সালে জন্মগ্রহণ করেন মাহবুব আলী। বুনিয়াদী আওয়ামী রাজনৈতিক পরিবারেই বেড়ে ওঠা তার। বাবা মাওলানা আসাদ আলী এ আসন থেকেই ১৯৭০ সালে প্রাদেশিক পরিষদ নির্বাচনে এমপি নির্বাচিত হন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ছিলেন তিনি।

অত্যন্ত সৎ, নিষ্ঠাবান ও সজ্জন নেতা হিসেবে তার সুখ্যাতি ছিল সর্বত্রই। আপামর সাধারণ মানুষের মাঝেও তিনি ছিলেন পরম শ্রদ্ধার পাত্র। গণমানুষের নেতা মাওলানা আসাদ আলীর ৫ ছেলে ও ২ মেয়ের মাঝে অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী চতুর্থ।

তিনিও বাবার মতোই সততা ও নিষ্ঠায় অতি অল্পদিনেই সুখ্যাতি অর্জন করেছেন।স্থানীয় আন্দিউড়া উম্মেতুন্নেছা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি ও বিএ পাস করেন। পরবর্তীতে তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন।

এরপর ১৯৭৯ সালে তিনি ঢাকা বারের সদস্য পদ লাভ করেন। একইসঙ্গে তিনি সেখানে আইন পেশায় মনোনিবেশ করেন। অতি অল্প দিনেই বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টে আইনজীবী হিসেবে তিনি বেশ খ্যাতি অর্জন করেন। পাশাপাশি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় রাজনীতিতে নিজের অবস্থান তৈরি করে নেন। দলের হয়ে ছাত্র রাজনীতি থেকেই বিভিন্ন সময় আন্দোলন সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।

ফলে ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসেই তাকে সহকারী এটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ দেয়। ১৯৯৮ সালে তিনি এ পদ ছেড়ে দেন। ২০০৩-২০০৪ মেয়াদে তিনি সুপ্রীম কোর্ট বারের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ব্যক্তি জীবনে অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী দুই মেয়ের জনক। বড় মেয়ে অস্ট্রেলিয়ায় পড়াশোনা করছেন। আর ছোটজন আইন বিষয়ে অনার্স পড়ছেন।

এতথ্য নিশ্চিত করে বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী মাধবপুর-চুনারুঘাটসহ জেলাবাসীকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, প্রিয়, মাধবপুর-চুনারুঘাটবাসী। আমাকে আবারো এমপি নির্বাচিত করায় আজ আমি প্রতিমন্ত্রী হয়েছি, তাই শোকরিয়া জ্ঞাপন করছি মহান আল্লাহ্ তালার নিকট এবং কৃতজ্ঞতা, অভিনন্দন ও অভিবাদন জানাচ্ছি মাধবপুর-চুনারুঘাটের সর্বস্তরের জনগণসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের সকল প্রিয় নেতা কর্মীদের।

আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করি এই বিজয় হলো আপনাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল। এই বিজয় আপনাদের, এই বিজয় দেশ উন্নয়নের, এই বিজয় দেশরত্ন শেখ হাসিনার উন্নয়নের। এবার আমার পরিকল্পনা পূরণ করতে চাই। হবিগঞ্জকে জাতীয় উন্নয়নে যুক্ত করতে চাই।

জননেত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে আমাকে অতীতে স্নেহ করেছেন এবারও তাঁর স্নেহ পাব আশা করি

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

ওয়েবসাইটের কোন কনটেন্ট অনুমতি ব্যতিত কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com