মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৭:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বাহুবলে ভূমি সেবা সপ্তাহের উদ্বোধন বাহুবলে জাতীয় পুষ্টি সেবা কার্যক্রমের আওতায় কর্মশালা অনুষ্ঠিত ফয়জাবাদ হাই স্কুলের সভাপতি সামিউল ইসলাম ঘূর্ণিঝড় রেমাল: ১৯ উপজেলার নির্বাচন স্থগিত বাহুবল উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অবাদ, সুন্দর ও দাঙ্গামুক্তভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে বাসার ছাদে আম পাড়তে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শিশুর মৃত্যু রেমাল পরিণত প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে, মহাবিপদ সংকেত বাহুবলে ৫ আওয়ামীলীগ নেতাকে হারিয়ে আলেম চেয়ারম্যান নির্বাচিত শান্তিপূর্ণ ও বিশ্বাস যোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে পুলিশ বদ্ধপরিকর- এসপি আক্তার হোসেন জনগণ যাকে ভালবাসবে, দায়িত্ব দিতে চাইবে, তাকেই দেবে- জেলা প্রশাসক

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিয়ে আর চালানো যাবে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

তরফ নিউজ ডেস্ক : ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিয়ে আর চালানো যাবে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তিন মাসের মধ্যে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পূর্ণকালীন অধ্যক্ষ নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড।
মঙ্গলবার (৫ মার্চ) বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক ড. মো. হারুন-অর-রশিদ স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছে।

আদেশে বলা হয়, ‘বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ অনুযায়ী অধ্যক্ষ নিয়োগের জন্য গত ২৫ ফেব্রুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয় পরিপত্র জারি করে। সেখানে বর্ণিত শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা অনুযায়ী বিধি মোতাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দ্বারা পরিচালিত প্রতিষ্ঠানে আগামী তিন মাসের মধ্যে অধ্যক্ষ নিয়োগের নির্দেশ দেয়া হলো।’

সূত্র জানায়, গত বছরের জুনে জারি করা এমপিও নীতিমালার জনবল কাঠামোতে উচ্চমাধ্যমিক কলেজ ও ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগের যোগ্যতা এবং বেতন গ্রেড নিয়ে যে নির্দেশনা রয়েছে তা নিয়ে শিক্ষক সংগঠনগুলো আপত্তি জানায়। এ জন্য গত বছরের আগস্ট মাসে অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ নিয়োগে স্থগিতাদেশ দেয়া হয়েছিল। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয় নতুন যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা নির্ধারণ করে সেই স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে।

সম্প্রতি বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নিয়ে জটিলতা তৈরি হওয়ায় ঢাকা শিক্ষা বোর্ড তাদের অধীনে যেসব স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং উচ্চমাধ্যমিক কলেজে অধ্যক্ষ নেই তাদের তালিকা তৈরি করে।

এতে দেখা যায়, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনেই ২০৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যক্ষ নেই। রাজধানীতে এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৭০টি। সারাদেশে অধ্যক্ষ না থাকা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা এক হাজার ১০০ এর কাছাকাছি।

জানা যায়, বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের সঙ্গে অন্য শিক্ষকদের নানা ধরনের দ্বন্দ্ব তৈরি হচ্ছে। এতে একাডেমিক কার্যক্রমে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হচ্ছে। আবার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষরা গভর্নিং বডির সঙ্গে যোগসাজশে ভর্তি, কেনাকাটা, কোচিং বাণিজ্যসহ নানা ধরনের অনিয়ম চালিয়ে যাচ্ছেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

ওয়েবসাইটের কোন কনটেন্ট অনুমতি ব্যতিত কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com