সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ০৩:০১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বৃহস্পতিবার সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা চট্টগ্রামে ছাত্রলীগের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সংঘর্ষে নিহত ৩ কলম্বিয়াকে হারিয়ে দ্বিতীয়বার কোপা আমেরিকার চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা বাহুবলে স্মার্ট এনআইডি কার্ড বিতরণের জন্য জনবল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাহুবলে দুই মাস ধরে নিখোঁজ রবিউলের সন্ধান চায় পরিবার যে কারণে ব্যারিস্টার সুমনকে হত্যার হুমকি দেয় সোহাগ ব্যারিস্টার সুমনকে হত্যার হুমকিদাতা গ্রেপ্তার পিএসসির প্রশ্নফাঁস: দায় স্বীকার করে ৭ জনের জবানবন্দি, ১০ জন কারাগারে দেশের সম্পদ বেচে মুজিবের মেয়ে ক্ষমতায় আসে না: প্রধানমন্ত্রী ব্যারিস্টার সুমনকে হত্যার হুমকি, প্রতিবাদে বাহুবলে মানববন্ধন

২ হাজার জনের বিরুদ্ধে মামলা, এলাকা পুরুষ শূন্য

নিজস্ব প্রতিবেদক : হবিগঞ্জের লাখাইয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে এক ব্যক্তি নিহত ও পুলিশসহ অর্ধশত আহতের ঘটনায় ২ হাজার জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। লাখাই থানা পুলিশের এসআই শফিকুর রহমান বাদী হয়ে শনিবার মামলাটি দায়ের করেন।

এর প্রেক্ষিতে ৩৩ জনকে আটক করা হয়েছে। সংঘর্ষে নিহত জামিরুল ইসলামের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এখনও কোনো মামলা দায়ের করা হয়নি।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার আমান উল্লাহপুরের বাসিন্দা লাখাই ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বাবলু এবং রুহিতনশী গ্রামের বাসিন্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শরীফ উদ্দিনের লোকজনের মধ্যে ঢাকায় একটি সমিতির লটারির টাকার ভাগাভাগি নিয়ে বিরোধ দেখা দেয়। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে উভয়পক্ষের লোকজন গ্রামের বাড়িতে এলে উল্লেখিত বিরোধের জের ধরে তারা শুক্রবার দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে জামিরুল ইসলাম নামে একজন মারা যায়। সংঘর্ষে পুলিশসহ অর্ধশত লোক আহত হন। অপরদিকে, মামলার পর এলাকা পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে।

ওই ঘটনায় এসআই শফিকুর রহমান বাদী হয়ে শনিবার বিকেলে অন্তত ২ হাজার জনকে আসামি করে পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করেন। এদিকে শুক্রবার রাত থেকে শনিবার দিনভর বিভিন্নস্থানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ৩৩ জনকে আটক করেছে।

লাখাই থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এমরান হোসেন জানান, নিহত জামিরুলের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। ইতোমধ্যে ৩৩ জনকে আটক করা হয়েছে। হামলাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি শান্ত আছে। এখনও হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় কোনো মামলা দায়ের হয়নি। সংঘর্ষে ১৫ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় এসআই শফিকুর রহমান বাদী হয়ে একটি পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করেছেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

ওয়েবসাইটের কোন কনটেন্ট অনুমতি ব্যতিত কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com