শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১০:৩৫ অপরাহ্ন

সিলেটের ১৬ আসনে ধানের শীষের ২৮ প্রার্থী

তরফ নিউজ ডেস্ক : এবার ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করছে বিএনপি। বিগত দিনে আন্দোলন সংগ্রামে যারা রাজপথে ছিলেন এবং দলের জন্য মামলার ঘানি টেনেছেন। দলটি এবার সেসব নেতাদের মূল্যায়ন করছে এবং দলের হেভিওয়েট ও সাবেক সংসদ সদস্যদের পাশাপাশি তাদের হাতেও তুলে দেওয়া হচ্ছে দলের মনোনয়নপত্র।

মঙ্গলবার (২৭ নভেম্বর) রাত পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী একাদশ সংসদ নির্বাচনে সিলেট বিভাগে ১৯টি আসনের মধ্যে ১৬টিতেই বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন ২৮ নেতা। যাদের মধ্যে সাবেক সংসদ সদস্য ও বিগত নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছেন এমন প্রার্থী ছাড়াও নতুন মুখ বেছে নেওয়া হয়েছে ১৭ জনকে। যারা দলের দুঃসময়ে আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে নেতৃত্ব দিয়েছেন। সেসব নেতাদের এবার সংসদে নিয়ে মূল্যায়ন করতে চায় বিএনপি।

সিলেটের ছয়টি আসনে দশ জনকে দলের মনোনয়নপত্র দেওয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে আট জনই নতুন মুখ। এছাড়া সুনামগঞ্জের পাঁচটি আসনে মনোনয়ন দেওয়া নয়জনের পাঁচজনই নতুন। মৌলভীবাজারে চারটি আসনে দলের মনোনয়নপ্রাপ্ত ছয়জনের মধ্যে নতুন মুখ এসেছে তিনজন, যাদের দু’জনকে ডামি হিসেবে রাখা হয়েছে।

আর হবিগঞ্জের তিনটি আসনে একজন করে প্রার্থীকে মনোনয়ন পত্র দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে নতুন মুখ একজনকে বেছে নিয়েছে দলটি। এছাড়া ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের প্রার্থীর জন্য তিনটি আসন ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে বলে জানা যায়।

দলের মনোনয়নপ্রাপ্তরা হলেন সিলেট-১ (সদর ও সিটি করপোরেশন) আসনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ইনাম আহমদ চৌধুরী এবং বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির।

সিলেট-২ (বিশ্বনাথ-ওসমানীনগর) আসনে নিখোঁজ বিএনপি নেতা এম. ইলিয়াস আলীর স্ত্রী বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহসিনা রুশদীর লুনা। সিলেট-৩ (দক্ষিণ সুরমা-ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ) আসনে বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য শফি আহমদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এ সালাম এবং যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী, সিলেট-৪ (কোম্পানীগঞ্জ-জৈন্তাপুর ও গোয়াইনঘাট) আসনে দলের কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য দিলদার হোসেন সেলিম এবং বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সামসুজ্জামান জামান।

সিলেট-৫ (জকিগঞ্জ-কানাইঘাট) আসনে জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও কানাইঘাট উপজেলা সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন এবং সিলেট-৬ (গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার) আসনে জেলা ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক বিএনপি নেতা ফয়সল আহমদ চৌধুরী।

সুনামগঞ্জ-১ (তাহিরপুর-জামালগঞ্জ-ধর্মপাশা ও মধ্যনগর) আসনে সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি নজির হোসেন, জেলার সহ-সভাপতি ও তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক আনিসুল হক এবং জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল।

সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শাল্লা) আসনে সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক নাছির উদ্দিন চৌধুরী ও যুক্তরাজ্য বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তাহির রায়হান চৌধুরী পাভেল, সুনামগঞ্জ-৪ (সদর-বিশ্বম্ভরপুর) আসনে সাবেক হুইপ ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ফজলুল হক আসপিয়া এবং জেলা বিএনপি সিনিয়র সহ সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেওয়ান জয়নুল জাকেরীন।

সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) আসনে বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন এবং কেন্দ্রীয় সদস্য ও ছাতক উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী।

মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ী) আসনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট এবাদুর রহমান চৌধুরী ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন আহমদ মিটু, মৌলভীবাজার-৩ (সদর-রাজনগর) আসনে জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এম নাসের রহমান, তার স্ত্রী রেজিনা নাসের  এবং মৌলভীবাজার-৪ (কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল) আসনে বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য হাজী মুজিবুর রহমান চৌধুরী, তার ছেলে আশিক মুঈদ চৌধুরী চিশতী।

হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনে বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শাখাওয়াত হাসান জীবন, হবিগঞ্জ-৩ (সদর-লাখাই) আসনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র জিকে গৌছ এবং হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধবপুর) বিএনপির সৈয়দ মোহাম্মদ ফয়সল।

এছাড়া মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া-কমলগঞ্জের একাংশ) আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে  ধানের শীষ প্রতীকে প্রার্থী হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু)  সাবেক ভিপি ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান মোহাম্মদ মনসুর। আর হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনে ঐক্যফ্রন্ট থেকে প্রয়াত অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়ার ছেলে ড. রেজা কিবরিয়া এবং সুনামগঞ্জ-৩ (সদর-জগন্নাপুর) আসনে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনুরপাশা চৌধুরীকে ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী দেওয়া হতে পারে।

সূত্র: বাংলা নিউজ

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

ওয়েবসাইটের কোন কনটেন্ট অনুমতি ব্যতিত কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY ThemesBazar.Com